সদ্য প্রাপ্ত সংবাদ:
কুমিল্লায় যুবককে কুপিয়ে হত্যা মামলার পলাতক আসামী গ্রেফতার শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে আমরা বাধা দিচ্ছি না : কুমিল্লায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রকৌশলীদের ভূমিকা রাখতে হবে-এমপি বাহার কুমিল্লায় সাংবাদিকের উপর ছাত্রলীগের হামলা! কুমিল্লায় অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী নিয়ে পিকনিকের বাস খাদে চৌদ্দগ্রামে সেলাই মেশিন ও শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ কুমিল্লায় সেনা সদস্যকে গুলি করে হত্যা কুমিল্লায় মুক্তিযোদ্ধার উপর হামলা,দুই লাখ টাকা লুটের অভিযোগ কুমিল্লায় স্কুল ছাত্রীর লাশ উদ্ধার; আত্মহত্যা নাকি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড ? কুবির এ ও বি ইউনিটের পরীক্ষা সম্পন্ন, শনিবার সি ইউনিটের পরীক্ষা

কুমিল্লায় প্রবাসীর স্ত্রীকে নির্যাতনের পর শ্বাসরোধে হত্যা !

(আক্কাস আল মাহমুদ হৃদয়, বুড়িচং)
কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার কালিকৃষ্ণনগর গ্রামের সাদ্দাম হোসেন প্রবাসীর স্ত্রী মৌসুমী আক্তার নয়ন (২১) কে গত বুধবার রাতে শ্বশুর বাড়ির লোকজন শারীরিক নির্যাতন করে হত্যা করে গলায় উড়না পেচিয়ে ঝুলিয়ে প্রচার করে আত্মহত্যার । খবর পেয়ে বুড়িচং থানা পুলিশ বৃহস্পতিবার সকালে লাশ উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য প্রেরন করে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,জেলার বুড়িচং উপজেলার রাজাপুর গ্রামের মো: সেলিম মিয়ার মেয়ে মৌসুমী আক্তার নয়ন (২১) এর সঙ্গে একই উপজেলার বাকশীমূল ইউনিয়নের কালিকৃষ্ণনগর গ্রামের খোরশেদ আলমের ছেলে মো: সাদ্দাম হোসেন এর তিন বছর পূর্বে পারিবারিক ভাবে বিবাহ দেওয়া হয়। মৌসুমীর পিতা মো: সেলিম মিয়া জানায় বিয়ের কিছুদিন পর সাদ্দাম হোসেন চাকুরি নিয়ে বিদেশে চলে যায়। স্বামী বিদেশে যাওয়ার পর মৌসুমীর উপর পারিবারিক বিষয় নিয়ে শ্বাশুড়ি রানুয়ারা বেগম ও ননদরা শারীরিক নির্যাতন করত।

এর জের ধরে গত বুধবার দিনের বেলায় মৌসুমী মোবাইল ফোনে তার বাবাকে জানায়, শ্বাশুড়ি ও ননদ কোহিনুর ও তার স্বামী মনির হোসেন পারিবারিক বিষয় নিয়ে একাধিক বার শারীরিক নির্যাতন করে । সেলিম মিয়া অভিযোগ করে আরো বলেন তার নিকট কালিকৃষ্ণনগর গ্রামের লোকজন জানায় তার মেয়ে মৌসুমীকে শ্বাশুড়ি, ননদ মিলে বুধবার রাতেও নির্যাতন করে। কোনো এক সময় মৌসুমীকে হত্যা করে ঘরের তীরের সঙ্গে উড়না পেচিয়ে ঝুলিয়ে রাখে।

তিনি আরো জানান, শাশুড়ী রানুয়ারা বেগম ননদ কোহিনুর আক্তার মিলে পারিবারিক বিষয় নিয়ে সারাদিন তাকে শারীরিক নির্যাতন করে বলে মোবাইল ফোনে জানায়। কিন্তু বৃহস্পতিবার সকাল বেলায় ওই গ্রামের লোকজন তাকে জানায়, তার মেয়ে মারা গেছে। তিনি খবর পেয়ে বাড়ির লোকজন নিয়ে মেয়ের স্বামীর বাড়ি কৃষ্ণনগর গিয়ে প্রকৃত বিষয় দেখে তিনি বুড়িচং থানা পুলিশকে খবর দেন। এদিকে তার মেয়ে মৌসুমীর লাশ ঘরে ফেলে শাশুড়ী,ননদ ও ঘরের লোকজন পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে বুড়িচং থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য প্রেরণ করে।

সেলিম মিয়া আরো অভিযোগ করে বলেন, মৌসুমীর স্বামী সাদ্দাম হোসেন প্রবাসে যাওয়ার পর থেকে তার মেয়েকে শ^শুর বাড়ির লোকজন পারিবারিক খুটিনাটি বিষয় নিয়ে শারীরিক নির্যাতনের মাত্রা বাড়িয়ে দেন। এ বিষয়ে তিনি কালিকৃষ্ণনগর এলাকার সাহেব সরদারদেরকে একাধিকবার অবহিত করেছে।

এই বিভাগের আরও খবর

এই সংবাদটি নিয়ে আপনার মূল্যবান মতামত জানান: