শ্বশুর বাড়ি গিয়ে লাশ হয়ে ফিরলেন কুমিল্লার ফিরোজ

আলোচিত সংবাদ, উপজেলার সংবাদ, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা, চৌদ্দগ্রাম, নির্বাচিত সংবাদ

(শাহীন আলম,চৌদ্দগ্রাম)
ফেনীতে স্ত্রী ও শ্বশুড় বাড়ির লোকজন পরিকল্পিতভাবে ফিরোজ মুন্সি(২৮) নামের দুই সন্তানের জনককে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। নিহত ফিরোজ কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের আলকরা ইউনিয়নের বাকগ্রাম মধ্যম পাড়ার গ্রামের মৃত নুরুল হকের পুত্র। ফিরোজকে হত্যা শেষে মুখে ঢেলে দেয়া হয়েছে বলে সাংবাদিকদের নিকট অভিযোগ করেছেন তার ভাই সিরাজ মিয়া।

মঙ্গলবার বিকেলে সিরাজ মিয়া অভিযোগ করেন, ফিরোজ মুন্সির স্ত্রী পারিভনের সাথে অপর যুবকের পরকিয়া চলছিল। ফিরোজ মুন্সি বিষয়টি জানতে পেরে স্ত্রী পারভিনকে ভালো হয়ে যেতে বলে। এতে ক্ষীপ্ত হয়ে পারভিন দুই সন্তান নিয়ে বাবার বাড়ি চলে যায়। সোমবার সকালের দিকে মোবাইলে কথা বলার মাধ্যমে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সমঝোতা হয়। এ সময় পারভিন স্বামী ফিরোজ মুন্সিকে বলে- তুমি আসলে আমি তোমার সন্তানদের নিয়ে তোমার বাড়িতে চলে যাবো। এমন আশ্বাসে ফিরোজ মুন্সি ওই দিন বিকালে তার শ্বশুড় বাড়ি ফেনীর ফুলগাজী থানার চাঁদপুর গ্রামে যায়।

সেখানে স্ত্রীসহ শ্বশুড় পক্ষের লোকজন তাকে হত্যা শেষে মুখে বিষ ঢেলে দেয়। তাকে উদ্ধার করে ফেনী সদর হাসপাতালে ভর্তি করলে রাতে তার মৃত্যু হয়। হাসপাতালে লাশ রেখে পালিয়ে যায় শ্বশুড় বাড়ির লোকজন। ঘটনাটি আত্মহত্যা বলে প্রচার করার অভিযোগ উঠেছে শ্বশুড় বাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে। নিহত ফিরোজ মুন্সির চার ও দেড় বছর বয়সী দুইটি মেয়ে সন্তান রয়েছে। ফেনী সদর হাসপাতালে নিহত ফিরোজের লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ফেনী ফুলগাজী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মঞ্জুর মোর্শেদ জাগো কুমিল্লা ডট কমকে জানান, প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে  বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেছে।  এখন পর্যন্ত থানায় কোন প্রকার অভিযোগ আসে নি।

Leave a Reply